মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২৪ নভেম্বর ২০২১

জটিল ও ব্যয়বহুল রোগের সেবা প্রদান পদ্ধতি

সেবাপ্রার্থীর ক্যাটাগরি :

কর্মরত সরকারি কর্মকর্তা, কর্মচারীর নিজে কোন জটিল রোগে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসা করালে জটিল ও ব্যয়বহুল রোগের দেশে বিদেশে  চিকিৎসা সাহায্য তহবিল হতে চাকরি জীবনে এক বা একাধিকবারে সর্বোচ্চ ২ (দুই) লাখ টাকা আর্থিক সাহায্য প্রদান করা হয়। [১ জুলাই, ২০১৯ এর পূর্বের চিকিৎসার জন্য সবোর্চ্চ  ১ লাখ টাকা এবং ১ জুলাই, ২০১৯ এর পরবর্তী সময়ে চিকিৎসার জন্য সবোর্চ্চ  ২ লাখ টাকা প্রদান করা হয়]

 

সেবার মৌলিক তথ্যাবলী :

 

সেবা প্রদানকারী অফিসের নাম

দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা/কর্মচারী

সেবা প্রাপ্তির স্থান

প্রয়োজনীয় সময়

বাংলাদেশ কর্মচারী কল্যাণ বোর্ড, ঢাকা

২টি কমিটি কর্তৃক পরীক্ষা নিরীক্ষা করে চূড়ান্ত অনুমোদন প্রদান করা হয়। কমিটি ২টি নিম্নরূপ:

১. বাছাই কমিটির সভার সুপারিশ

২. জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ব্যবস্থাপনা কমিটির সভায় চুড়ান্ত অনুমোদন

বাংলাদেশ কর্মচারী কল্যাণ বোর্ড, প্রধান কার্যালয়, ঢাকা।

৩০ কার্যদিবস

সেবা প্রদানের সংক্ষিপ্ত বিবরণ

 

 

 

১. আবেদনসমূহ প্রাপ্তির পর সফটওয়্যারে এন্ট্রি করে তালিকা তৈরি এবং SMS এর মাধ্যমে আবেদনের ডিজিটাল ডায়েরী নম্বর, তারিখ ও আবেদনে কোন ত্রুটি থাকলে তা জানিয়ে দেয়া হয়

২. বাছাই কমিটিতে বিশেষজ্ঞ ডাক্তার দ্বারা রোগের সঠিকতা নিরুপন, কাগজপত্রসমূহ পরীক্ষা নিরীক্ষা এবং অর্থ সুপারিশ করা হয়

৩. পরবর্তীতে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মহোদয়ের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ব্যবস্থাপনা কমিটির সভায় চূড়ান্ত অর্থ মঞ্জুরি প্রদান করা হয় এবং SMS এর মাধ্যমে মঞ্জুরিকৃত অর্থের পরিমাণ জানিয়ে দেয়া হয়

৪. সেবাপ্রার্থীর নামে মঞ্জুরিকৃত অর্থ সেবাপ্রার্থীর ব্যাংক হিসাবে EFT এর মাধ্যমে পৌঁছে দেয়া হয় এবং অগ্রায়নপত্রের মাধ্যমে এডভাইস লেটার জনতা ব্যংকে প্রেরণ করা হয়

৫. এ সংক্রান্ত সকল তথ্য বোর্ডের ওয়েবসাইট (www.bkkb.gov.bd) থেকে জানা যায়

সেবা প্রাপ্তির শর্তাবলি

 

 

 

১. নির্ধারিত আবেদন ফরম নং ০৮ পূরণ করে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রাদি প্রতিস্বাক্ষর করে সংযুক্ত করে মহাপরিচালক, বাংলাদেশ কর্মচারী কল্যাণ বোর্ড, প্রধান কার্যালয়, ১ম ১২তলা সরকারি অফিস ভবন, সেগুনবাগিচা, ঢাকা বরাবরে একটি ফরওয়ার্ডিং চিঠির মাধ্যমে প্রেরণ করতে হয়;

২.   কর্মরত সরকারি কর্মকর্তা, কর্মচারীর নিজের চিকিৎসার জন্য চাকরি জীবনে এক বা একাধিকবারে সর্বোচ্চ ২ (দুই) লাখ টাকা আর্থিক অনুদান প্রদান করা হয়;

৩.   ফরমের নির্ধারিত স্থানে বিশেষজ্ঞ ডাক্তার কর্তৃক প্রত্যয়ন এবং মৃত কর্মকর্তা কর্মচারীর অফিস কর্তৃপক্ষের স্বাক্ষরসহ নামযুক্ত সিল প্রদান;

৪.  জটিল ও ব্যয়বহুল রোগঃ হার্ট ষ্ট্রোক, ব্রেইন ষ্ট্রোক, বাইপাস সার্জারী, হার্টে রিং পড়ানো, ক্যান্সার, কিডনী ডায়ালাইসিস, কিডনী ট্রান্সফার, মারাত্মক দূর্ঘটনাজনিত কারণে অঙ্গহানি।

প্রয়োজনীয় কাগজপত্র

১. হাসপাতালে ভর্তি হয়ে থাকলে মূল ছাড়পত্র (অফিস কর্তৃপক্ষ কর্তৃক প্রতিস্বাক্ষরিত);

২. চিকিৎসা সংক্রান্ত বিল ভাউচার এর মূলকপি (অফিস কর্তৃপক্ষ কর্তৃক প্রতিস্বাক্ষরিত);

৩. চিকিৎসা সংক্রান্ত ব্যবস্থাপত্র ও রিপোর্ট (অফিস কর্তৃপক্ষ কর্তৃক প্রতিস্বাক্ষরিত);

৪. চিকিৎসা সংক্রান্ত খরচের হিসাববিবরণী (কর্মচারীর স্বাক্ষর সহ);

৫. জাতীয় বেতনস্কেল, ২০১৫-এ বেতননির্ধারণ (Payfixation) ফরমের সত্যায়িত ফটোকপি;

৬. নূন্যতম জেলা পর্যায়ে কর্মকর্তা কর্তৃক প্রত্যয়ন ও অগ্রায়ন হতে হবে।

প্রয়োজনীয় ফি/ ট্যাক্স/ আনুষংঙ্গিক খরচ

এজন্য কোন ফি প্রয়োজন হয় না

সংশ্লিষ্ট আইন-কানুন/ বিধি-বিধান/ নীতিমালা

বাংলাদেশ কর্মচারী কল্যাণ বোর্ড আইন, ২০০৪ এবং বাংলাদেশ কর্মচারী কল্যাণ বোর্ড (তহবিলসমূহ পরিচালনা ও রক্ষণাবেক্ষণ) বিধিমালা ২০০৬ অনুযায়ী

নির্দিষ্ট সেবা পেতে ব্যর্থ হলে পরবর্তী প্রতিকারকারী কর্মকর্তা

পরিচালক(প্রশাসন)/মহাপরিচালক

 

জটিল ও ব্যয়বহুল রোগের চিকিৎসা অনুদানের প্রাপ্তি স্বীকারপত্র

 

এমতাবস্থায় জেনে নিন আপনার আবেদন কি অবস্থায় আছে;

নিষ্পত্তিকৃত চলমান

                                      ২০২১

                                ২০১৯

পরবর্তী সভার তালিকা তৈরির কাজ চলছে।

 

 

 

 

 

কি কি কারনে আবেদন স্থায়ী মেডিকেল বোর্ডে প্রেরণ করা হয় নাঃ 

  • আবেদনকারীর মোবাইল নম্বর না থাকলে;
  • আবেদনকারীর কর্তৃপক্ষের টেলিফোন বা মোবাইল নম্বর কোনটাই না থাকলে;
  • আবেদনকারী পুরাতন (বাতিল) ফরমে আবেদন করলে। নতুন ফরম বোর্ডের ওয়েব সাইটে পাওয়া যাচ্ছে।
  • আবেদনকারী ফরমের ১২ নং কলামে ইতিপূর্বে কোন টাকা পেয়েছেন কিনা তা সঠিকভাবে উল্লেখ না করলে;
  • আবেদন ফরমের সাথে যে সকল কাগজপত্র সংযুক্ত করার কথা সেগুলোর কোন একটি সংযুক্ত না করলে;
  • আবেদন ফরমে আবেদনকারীর বা কর্তৃপক্ষের স্বাক্ষর/সিল না থাকলে।

 

এ বিষয়ে আপনার আরও কোন তথ্য জানার প্রয়োজন হলে কল্যাণ তথ্য ও সেবা কেন্দ্রে টেলিফোন করে জানতে পারবেন।
ফোনঃ ৯৩৫৮০৪৮, মোবাইলঃ ০১৮৫৬৬৮৭৭৭৩


Share with :

Facebook Facebook